Thursday, 1 December 2016

পে টি এম কি এবং কিভাবে এটি ব্যবহার করবেন ?

আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রী নভেম্বর ৯ থেকে ৫০০ এবং ১০০০ টাকার নোট বাতিল করে দেওয়ার পর থেকে দেশে টাকার অভাব। সব টাকা ব্যাঙ্ক একাউন্টে জমা পড়ে, রাস্তা ঘাটে কোনো কিছু কেনা খুবই মুশকিল হয়ে পড়েছে। অনেক দোকানে হয়তো কার্ড পেমেন্ট ব্যবস্থা চালু করার চিন্তা ভাবনা চলছে।

কিন্তু সকলেই নিশ্চয় শুনে থাকবেন এক নতুন পেমেন্ট ব্যবস্থার, পে টি এম, বিশেষ করে প্রধানমন্ত্রী যখন নিজেই এই ব্যবস্থা সম্পর্কে মানুষকে আগ্রহী করে তোলার চেষ্টা করছেন। কিন্তু অনেকেই এই নতুন ব্যবস্থার সাথে ঠিক সেইভাবে পরিচিত নন, তাই হয়তো অনেক ধরণের প্রশ্ন জমেছে, হয়তো কেউ কেউ এই পদ্ধতি অবলম্বন করতে চাইছেন বা হয়তো অনেকে ব্যবহার করতে গিয়েও পিছিয়ে পড়েছেন, ভাবছেন এটা বিস্বস্ত কিনা বা কিভাবে কাজ করতে হবে।
তবে নোট বাতিল কে অজুহাত করে যদি আপনি এই নতুন পদ্ধতি ব্যবহার করা শুরু করেন এবং অভ্যস্ত হয়ে পড়েন, দেখবেন পরে আপনারই সুবিধা হবে।

এই সব প্রশ্ন গুলো কিছু উত্তর আপনাদের সামনে রাখার চেষ্টা করছি।

পে টি এম কি ?

পে টি এম একটি অনলাইন পেমেন্ট সিস্টেম। অর্থাৎ আপনার টাকা আপনার হাতে থাকবে না, থাকবে অনলাইন। আপনি শুধু এটা দেখতে পাবেন যে আপনার কাছে কত টাকা আছে এবং আপনি সেই টাকা খরচ করতে পারবেন। যারা অনলাইনে ব্যাঙ্ক একাউন্ট চেক করেন এবং অনলাইন পেমেন্ট করেন, তারা খুব সহজেই বুঝতে পারবেন। যারা এই ধরনের কোনো পদ্ধতি ব্যবহার করেন না, তাদের কাছে ব্যাপারটা অনেক পরিষ্কার হয়ে যাবে যদি আপনি  মোবাইল ব্যবহার করেন। মোবাইলে যেভাবে ব্যালেন্স রিচার্জ করে আপনি কল, এস এম এস করেন, পে টি এম অনেকটা সেই রকম।
আপনি আগে আপনার একাউন্টে ব্যালান্স রিচার্জ করবেন, তার পর সেই ব্যালেন্স ব্যবহার করে প্রয়োজনীয় টাকা আদান প্রদান করতে পারবেন।

কি সুবিধা দেবে পে টি এম ?

  • পে টি এম থাকলে আপনাকে খুচরো টাকা নিয়ে সব সময় ঘুরতে হবে না। দোকানদারের খুচরোর সমস্যা কম হয়ে যাবে।
  • পে টি এম থাকলে আপনি শুধু কেনাকাটা নয়, আরো অনেক কিছু করতে পারবেন। যেমন বাস, ট্রেন, প্লেনের টিকিট বুক করতে পারবেন।
  • পে টি এম থেকে সিনেমার টিকিট বুক করতে পারবেন
  • পে টি এম অনেক সময় বিশেষ ছাড় এবং অফার দেয়, সেগুলো আপনি ব্যবহার করতে পারবেন বিভিন্ন ভাবে
  • পে টি এম থেকে গ্যাস বিল, ইন্টারনেট বিল, টেলিফোন বিল, DTH রিচার্জ, মোবাইল রিচার্জ, ইলেকট্রিক বিল ইত্যাদি পেমেন্ট করতে পারবেন
  • পে টি এম এর মাধ্যমে আপনি যে কাউকে টাকা পাঠাতে পারবেন যে কোনো জায়গায় বসে
  • আপনি পে টি এমের মাধ্যমে অন্য কারোর একাউন্ট থেকে নিজের একাউন্টে টাকা নিতে পারেন
  • আপনি আপনার ব্যবসায়িক লেনদেন পে টি এমের মাধ্যমে করতে পারেন। আমি ২ দিন আগেই একটি পানের দোকানে দেখলাম পে টি এমের মাধ্যমে টাকা নিচ্ছেন। শুধু পান দোকানেই নয়, এখানে বেশ কিছু ছোট ছোট ব্যবসাটি পে টি এমের মাধ্যমে লেনদেন চালু করেছেন।
  •  তার মানে এটা স্পষ্ট যে কাজ টি খুব একটা শক্ত নয়

পে টি এম কতটা সুরক্ষিত ?

আমরা যেহেতু নগদ টাকার লেনদেনে অভ্যস্ত, তাই স্বাভাবিক ভাবেই আমাদের সবার মনে এই বিষয়ে প্রশ্ন আসা বা সন্দেহ হওয়া উচিত। তথ্যপ্রযুক্তি পেশায় নিযুক্ত থাকার সুবাদে আমি এই বিষয়ে কিছু তথ্য আপনাদের সামনে তুলে ধরতে চাই। পে টি এম ঠিক ততটাই সুরক্ষিত যতটা এস বা আই অনলাইন ব্যাঙ্কিং। সুতরাং আপনি যদি কখনো অনলাইন ব্যাঙ্কিং করে থাকেন, তাহলে বুঝতে পারবেন যে পে টি এম যথেষ্ট সুরক্ষিত।
তাও যদি আপনার মনে সন্দেহ থাকে, আপনি প্রথমে অল্প পরিমান টাকার লেনদেন করুন (১০, ২০, ৫০, ১০০ ইত্যাদি)। তার পরে ধীরে ধীরে যখন আপনি অভ্যস্ত হবেন, তখন না হয় বেশি টাকার লেনদেন করবেন।

কিভাবে ব্যবহার করবেন পে টি এম ?

দুঃখজনক একটি কথা এবার জানা দরকার, পে টি এম ব্যবহার করা এখনো পর্যন্ত হয়তো বাংলার সব মানুষের পক্ষে সম্ভব নয়। তবে যারা এই পোস্টটি পড়ছেন, তাদের মধ্যে হয়তো অনেকেই পে টি এম ব্যবহার করতে পারবেন।
পে টি এম ব্যবহার করতে আপনার যা যা লাগবে তা হলো 
  • স্মার্টফোন 
  • ইন্টারনেট 
  • অনলাইন ব্যাঙ্ক একাউন্ট
  • একটি মোবাইল নম্বর 
যদি এই সব কিছুই আপনার থাকে, তাহলে চলুন দেখে নি কিভাবে ব্যবহার করবো আমর পে টি এম।
সবার প্রথমে আপনার স্মার্টফোনে পে টি এম এপ্লিকেশন ডাউনলোড করতে হবে।
Google Play Store বা App Store থেকে paytm ডাউনলোড করুন।

ডাউনলোড হবার পরে আপনি এই রকম একটি স্ক্রিন দেখতে পাবেন

এখানে আপনার পছন্দের ভাষা সিলেক্ট করে পরের স্ক্রিনে চলে যান


এখানে স্ক্রিন সোয়াইপ করে পরের স্ক্রিনে চলে যান 



এখানে নিচে প্রোফাইল আইকন ট্যাপ করুন 

এর পরে আপনি একটি স্ক্রিন দেখতে পাবেন, যেখান থেকে আপনাকে আপনার একাউন্টে লগ ইন করতে হবে বা নতুন একাউন্ট খুলতে হবে।

দেখে নি আপনি নতুন একাউন্ট কি করে খুলবেন 

প্রোফাইল আইকন ট্যাপ করার পরে আপনি নিচের স্ক্রিন টি দেখতে পাবেন 


সেখান থেকে লগইন ট্যাপ করার পরে আপনি নিম্নবর্তী স্ক্রিন টি দেখতে পাবেন 



সমস্ত Access Allow করার পরে আপনি নিচের স্ক্রিন টি দেখতে পাবেন 



এই স্ক্রিন  থেকে  Sign Up ট্যাপ করলে আপনি নতুন পে টি এম একাউন্ট খুলতে পারবেন। পে টি এমের একাউন্ট খুলতে আপনার শুধু মাত্র মোবাইল নম্বর লাগবে,


এই স্ক্রিন এ আপনার মোবাইল নম্বর এন্টার করুন এবং যদি আপনার ই মেইল থাকে, তাহলে সেটিও এন্টার করতে পারেন। এ ছাড়া আপনাকে দিতে হবে একটি পাসওয়ার্ড। সমস্ত তথ্য প্রদান করার পরে Sign Up ট্যাপ করুন। এর পরে আপনি নিম্নবর্তী স্ক্রিন টি দেখতে পাবেন, যেখানে আপনাকে OTP এন্টার করতে হবে।
 OTP হলো ৬ অংক বিশিষ্ট একটি সংখ্যা যেটি আপনার মোবাইলে এস এম এস রূপে আপনি পাবেন। মোবাইল এ এস এম এস পাওয়ার পর আপনাকে ওই ৬ অনেক বিশিষ্ট সংখ্যা টি এই স্ক্রিন এ এন্টার করতে হবে,

দেখুন কিভাবে আমি আমার OTP এন্টার করেছি 



এর পরে Done ট্যাপ করলে আপনার বিবরণ চাওয়া হবে


এখানে আপনার নাম, জন্মদিন ইত্যাদি বিবরণ এন্টার করুন এবং Confirm ট্যাপ করুন। উদাহরণ স্বরূপ


এর পরে আপনি সোজাসুজি আপনার একাউন্ট দেখতে পাবেন এবং আপনার একাউন্টের বিবরণ আপনার মোবাইল স্ক্রিনে দেখতে পাবেন



এখান থেকে হোম ট্যাপ করলে আপনি হোম পেজে চলে যাবেন, যেখান থেকে আপনি বিভিন্ন ধরণের লেনদেন করতে পারবেন 




আমাদের পরের পোস্টে আমরা দেখে নেবো কিভাবে আমরা পে টি এম একাউন্টে টাকা পাঠাবো এবং কিভাবে সেই টাকা আমরা বিভিন্ন লেনদেনে ব্যবহার করবো পে টি এম একাউন্ট থেকে।

No comments:

Post a Comment